গেস্ট পোস্টিংঃ কী, কেন এবং কিভাবে করবেন?

অফ পেইজ এসইও’ র বহুল আলোচিত এবং সবচেয়ে কঠিন কাজ বলা চলে গেস্ট পোস্টিং বা গেস্ট ব্লগিং’কে। সেইফ, পাওয়ারফুল এবং কোয়ালিটি লিংক বিল্ডিং এর অন্যতম মাধ্যম এই গেস্ট ব্লগিং।

কিন্তু, দিন দিন এসইও কম্পিটিশন অনেক বাড়ার কারণে এই কাজ অনেক সময় সাপেক্ষ, ব্যয়বহুল এবং ইংরজী কমিউনিকেশন দুর্বলতার কারণে কঠিন ঠেকে অনেকের কাছে।

নিজের অল্প বিস্তর অভিজ্ঞতা থেকে শেয়ার করার চেষ্টা করব, যাতে আপনারা অন্তত একবার চেষ্টা করার মত আগ্রহ হলেও পান।

সাইড নোটঃ গেস্ট পোস্ট নিয়ে এই আর্টিকেল নিজেও কিন্তু একটা গেস্ট পোস্ট। 😛

গেস্ট ব্লগিং কি?

সহজ কথায় গেস্ট ব্লগিং বা গেস্ট পোস্টিং মানে হল, অন্যের সাইটে গেস্ট হয়ে কোন আর্টিকেল লেখা। আপনি কারো সাইটের জন্য একটা আর্টিকেল লিখলেন এবং বিনিময়ে আপনি বেনিফিটেড হলেন। হতে পারে আপনার বিজনেস/পারসোনাল ব্র্যান্ড ভ্যালু তৈরী করার মাধ্যেমে  অথবা আপনার সাইটের জন্য লিংক বিল্ড করার মাধ্যমে।

অ্যাফিলিয়েট নিশ সাইটের ক্ষেত্রে মূলত আমরা ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্যেই গেস্ট ব্লগিং করি। ব্র্যান্ড লাগবেনা, লিংক দ্যাও মোরে লিংক দ্যাও! 😛

প্রশ্ন জাগতে পারেঃ কোথায় পাব সাইট গুলো?

গেস্ট পোস্ট নিতে আগ্রহী সাইটের মালিকরা গেস্ট পোস্ট করার প্রসিডিউর নিয়ে পেইজ রাখেন। যেখানে কন্টাক্ট ইনফো এবং বিস্তারিত বিষয়াদি থাকে।

কিছু স্পেসিফিক সার্চ টার্ম ব্যবহার করে আপনি সহজেই সাইটগুলো গুগল থেকে বের করতে পারবেন।

আরও প্রশ্ন জাগতে পারেঃ আরেকজন কেন গেস্ট পোস্ট করতে দিবে তার সাইটে?

খুব সহজে ফ্রীতে ইউনিক কন্টেন্ট পাওয়ার ভাল উপায় এটা। আপনার আর্টিকেলের কারণে তার সাইটের কন্টেন্ট বাড়বে, সাইটের অথরিটি এবং সেও লাভবান হবে তার বিজনেসের দিক থেকে। অনেক সময় অনেকে আর্টিকেল এর পাশাপাশি টাকাও চায়। আবারো লাভ তার!  

কিভাবে করবেন?

আলোচনার সুবিধার্থে তিন ধাপে আলোচনা করছি।

১. ইমেইল কালেকশনঃ

গেস্ট ব্লগিং নিয়ে যাদের অলরেডি কিছুটা জানাশোনা আছে তারা এই বিষয়টা জেনে থাকার কথা। পূর্বেই বলেছি, আগ্রহী সাইটের মালিকরা গেস্ট পোস্ট করার বিস্তারিত প্রসিডিউর এবং কন্টাক্ট ইনফো দিয়ে রাখে তাদের সাইটে। আর, স্পেসিফিক কিছু সার্চ টার্ম দিয়ে সহজে বের করতে পারবেন সাইটগুলো।

যেমনঃ

Your Keyword “write for us” 

Your Keyword “become a contributor”

Your Keyword “become a guest writer”

Your Keyword “guest post guidelines”

Your Keyword “contribute to our site”

অথবা,

inurl:guest-post-guidelines Your Keyword

inurl:guest-posts Your Keyword

inurl:write-for-us Your Keyword

অল্প কিছু দিলাম এখানে, যেগুলো সবচেয়ে বেশী ব্যবহৃত। এর বাইরেও লাগলে কারো গুগলে পাবেন অথবা, পোস্ট এর শেষাংশে রিসোর্স দিয়ে দিব। সেখানেও পাবেন।

উপরোক্ত সার্চ টার্ম গুলোতে Your Keyword অংশে আপনার নিশের সাথে মিল রেখে কি ওয়ার্ড লিখবেন। চেষ্টা করবেন ব্রড কিওয়ার্ড লিখতে, একদম স্পেসিফিক না। এবং বায়িং ইনটেনশনাল কি ওয়ার্ড বাদ দেয়ার চেষ্টা করবেন।

যেমনঃ আপনার নিশ যদি হয় Baby Stroller  ( ব্যাঙের ইমো 🐸  

সার্চ টার্ম হবেঃ  baby stroller “write for us”, baby care “write for us”, baby funny ideas “write for us” এরকম।

এবার আসি পরবর্তী ধাপে,

এই সার্চ টার্মগুলো দিয়ে খুঁজে পাওয়া সাইট গুলো থেকে আপনার এক্সেল শীটে যে বিষয় গুলো নোট করবেনঃ

১. ইউআরএল

২. সাইটের মালিক/কন্টাক্ট ইনফোতে যার সাথে কন্টাক্ট করতে বলা হয়েছে তার নাম

৩. ইমেইল

৪. সাবজেক্ট লাইন  (অনেক সময় বলে দেয়, মেইল পাঠানোর সময় সাবজেক্ট এর জায়গায় নির্দিষ্ট কিছু লিখতে। যেমনঃ “I Want To Write For You”)

উপরোক্ত প্রসেসে আপনি চাহিদামত কিছু ইমেইল(১০০-২০০) কালেক্ট করে এর পরের ধাপে যাবেন।

*ছোট্ট টিপসঃ অনেকে এই ধাপেই সাইটের ডিএ, পিএ, ট্রাফিক হাবিজাবি চেক করে। এটা করার দরকার নেই, সময় নষ্ট অযথা। ইমেইল পাঠানোর পর কেউ আগ্রহ দেখালে তখন চেক করবেন এগুলো, আপনার অনেক সময় বেচে যাবে।

আরিফুল ইসলাম পলাশ
​Palash's Note

যদি আপনার Ahrefs থাকে,তাহলে সাইটের আউটগোয়িং লিংকস সেকশন থেকে এই সাইট কি ধরণের সাইট কে লিংক দিচ্ছে এবং কেমন অ্যাংকর টেক্সট এ লিংক দিচ্ছে সেটা দেখতে পারেন। আর মমি ব্লগ (মায়েদের ব্লগ) গুলোকে  এড়িয়ে চলবেন।  

২. মেইল পাঠানোঃ

গেস্ট পোস্টিং এর আরেকটা জরুরী বিষয় হচ্ছে এই মেইল পাঠানোর ব্যাপারটি। মেইলে মূলত কি লেখা থাকে, কি লিখতে হয় তার একটা উদাহরণ এটাঃ

 অনেকেই নেট থেকে, বন্ধুর থেকে কপি করা ইমেইল টেম্পলেইট পাঠিয়ে কোন আশানুরূপ রেসপন্স পান না। আমার কাছেও যারা চেয়েছেন, মাফ করে দিয়েন! L 

সবাই মিলে হাবিজাবি লিখে একই মেইল পাঠালে সেটা স্প্যামিং এর পর্যায়ে চলে যায়। এজন্য, এই একটা ব্যাপার একদম ইউনিক রাখার চেষ্টা করবেন। এবং যত সম্ভব ফরমাল, ইন্টারেস্টিং নিজের মান ইজ্জত বাঁচিয়ে মেইল করবেন।

সাথে মাথায় রাখবেন প্রফেশনালিজম এর ব্যাপারটা। তাকে একটা লিংক দিতে মিসকিনের মত অনুরোধ না, বরং আপনার প্রফেশনাল অবস্থান যেন সে আঁচ করতে পারে সেদিকটা খেয়াল রাখা জরুরী।

৩. নেগোসিয়েশনঃ

 গেস্ট ব্লগিং এর রেসপন্স রেট আসলেই অনেক কম। দিন দিন এটা আরও কমছে। ১০% ও মনে হয় ভাগ্যের ব্যাপার কিছু কিছু ক্ষেত্রে। মেইলের রিপ্লাই আসবে অনেকের থেকে। এর মধ্যেঃ কেউ শুধু ইউনিক আর্টিকেল লিখে দিতে বলবে, অনেকে টাকা চাইবে। এবং পুরো বিষয়টা নির্ভর করে সে সাইটের অবস্থা এবং আপনার আগ্রহের উপর।

নেগোসিয়েশন করবেন, মন খুলে কথা বলবেন। একবার মেইলের রিপ্লাই দিলে, সেই মেইল আর স্প্যাম বক্সে যাবেনা। ইনবক্সেই যাবে! 😉 

ভুল ইংরেজী এবং হাবিজাবি লিখে বিশাল বিশাল মেইল পাঠানো এড়িয়ে চলবেন। অল্প কথায় কি চান না চান, তা বুঝিয়ে বলুন। 

গেস্ট পোস্ট/লিংক নেয়ার আগে যে সাইটের যে বিষয়গুলো খেয়াল করতে হবেঃ

অনেকেই ডিএ, পিএ সহ হাবিজাবি নানান বিষয়াদি দেখেন। এসব অত বেশী জরুরী কিছু বলে মনে করিনা। সাইটটা দেখতে ন্যাচারাল কিনা, সাইটের মালিক কি উদ্দেশ্যে সাইট চালাচ্ছে, রিয়েল কিছু ট্রাফিক(অন্তত ৩০০-৫০০+) এবং ব্যাকলিংক প্রোফাইল চেক করে আপনি একটা সাইট সম্পর্কে আইডিয়া পেতে পারেন।

আরও কিছু বিষয়ঃ

১. গেস্ট পোস্ট করতে গিয়ে শুধুমাত্র নিশ রিলেভ্যান্সি যারা খুঁজেন তাদের -_- এই ইমো দিতে মন চায়। এটা খুবই কঠিন। কারণ, আপনার আমার জন্য রিলেভ্যান্ট সাইট বানিয়ে কেউ বসে নেই। ব্রড নিশ ও যদি হয়,তাও নিতে পারবেন।

২. অনেক সময় মেইলের রিপ্লাই পাবেন, আমার আরও ১০ সাইট আছে। সবগুলো থেকে তুমি লিংক নাও টাইপ। মেঘ না চাইতে জল পেয়েছি ভাবার আগে এটাও ভাববেন, সেগুলো পিবিএন অথবা নেগেটিভ কোন ব্যাপার থাকতে পারে।

৩. কিছু কিছু সাইটে সরাসরি কন্টাক্ট ফর্ম থেকে কন্টাক্ট করতে বলে। সেক্ষেত্রে কন্টাক্ট মেসেজেই আপনার ইমেইল টেম্পলেট মেসেজ করবেন।

৪. কিছু সাইট সরাসরি আর্টিকেল সাবমিট করতে বলে। এটাও করতে পারেন। এজন্য, দুই-তিনটা আর্টিকেল লিখে হাতে রাখবেন এবং কোন সাইট পেলে আর্টিকেল সাবমিট করে দিতে পারেন।

৫. লিংক নেয়ার ক্ষেত্রে এংকর টেক্সট সম্পর্কে সচেতন থাকবেন। আপনার এই একটি ভুল সাইটের বিশাল ক্ষতি করে দিতে পারে।
এংকর টেক্সট নিয়ে পড়ুন এই আর্টিকেল

এছাড়াও পলাশের এক্সপায়ারড ডোমেইন নিয়ে লেখা আর্টিকেলে সাইটের ম্যাট্রিক্স নিয়ে কিছু কথা বলেছে, যেটা একটা সাইট ভাল কি খারাপ সেটা বুঝতে সহায়ক হতে পারে। পড়ে নিতে পারেন এখান থেকে। 

৬. অনেকে এক্সিস্টিং কন্টেন্ট থেকে লিংক নেয়ার ব্যাপারেও আগ্রহী থাকেন। সেক্ষেত্রে কোন ওয়েবমাস্টারকে কথা বলে রাজি করাতে পারলে নিতে পারবেন সাইটের অন্যান্য ম্যাট্রিক্স ঠিক থাকলে। সম্পর্ক বিল্ড আপ না করে, এক্সিস্টিং কন্টেন্ট থেকে লিংক চাওয়া বেমানান।

৭. অনেক ফইন্নি ব্লগার আছে, টাকা পয়সা হাতে পেলে লিংক নাই করে দেয়। এটা স্রেফ দুর্ভাগ্য!
সেদিনই ১০০ ডলারের লিংক নাই করে দিয়েছে এক বেত্তমিজ। 🙁 

গেস্ট ব্লগিং নিয়ে কিছু রিসোর্সঃ 

১. http://backlinko.com/the-definitive-guide-to-guest-blogging

২. https://www.quicksprout.com/2013/04/01/how-to-get-your-guest-post-published/

৩. http://www.pageonepower.com/linkarati/guest-blogging-seo-beginners-guide

৪. https://moz.com/blog/the-ultimate-guide-to-advanced-guest-blogging


পরিশেষে, 

খুবই বেসিক বিষয়াদি যদিও, যা নিয়ে বিভিন্ন ব্লগে ভাল ভাল লেখা আছে। কারো কোনভাবে অল্প একটু উপকারে আসলেও সার্থক। এর বাইরেও ছোট খাট কিছু বিষয়াদি থাকে। সেগুলো যার যার কাজের অভিজ্ঞতা। কাজ করতে থাকলে ক্রমান্বয়ে ফলপ্রসূ উপায় আপনি নিজেও পেয়ে যাবেন।

কারো কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট সেকশনে লিখুন। আর্টিকেল পড়ে আপনার অনুভূতি জানাতে ভুলবেন না। প্রথম যেকোন কাজই কঠিন এবং ভুলে ভরা থাকে। ভুল থাকলে ধরিয়ে দিবেন। 

গেস্ট পোস্ট নিয়ে যারা মাঠে নামবেন ভেবেছেন, একবার নামতেই পারেন। না নামলে আপনি বুঝবেনই না এতক্ষণ যা পড়েছেন সবই ফেইক –ভুয়া! 😉 

K M Rafiqul Islam
 

ফেইক আইডি হিসেবে পরিচিত।

পেশায়ঃ ফেইক ছাত্র, ফেইক অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার। :D